গান্ধারীর আবেদন/Gandhari’s supplication

গান্ধারীর আবেদন

দুর্যোধন । প্রণমি চরণে তাত!
ধৃতরাষ্ট্র ।                 ওরে দুরাশয় ,
অভীষ্ট হয়েছে সিদ্ধ ?
দুর্যোধন ।                লভিয়াছি জয় ।
ধৃতরাষ্ট্র । এখন হয়েছ সুখী ?
দুর্যোধন । হয়েছি বিজয়ী ।
ধৃতরাষ্ট্র । অখণ্ড রাজত্ব জিনি সুখ তোর কই
রে দুর্মতি ?
দুর্যোধন । সুখ চাহি নাই মহারাজ!
জয় , জয় চেয়েছিনু , জয়ী আমি আজ ।
ক্ষুদ্র সুখে ভরে নাকো ক্ষত্রিয়ের ক্ষুধা
কুরুপতি — দীপ্তজ্বালা অগ্নিঢালা সুধা
জয়রস , ঈর্ষাসিন্ধুমন্থনসঞ্জাত ,
সদ্য করিয়াছি পান ; সুখী নহি , তাত ,
অদ্য আমি জয়ী । পিতঃ , সুখে ছিনু , যবে
একত্রে আছিনু বদ্ধ পাণ্ডবে কৌরবে ,
কলঙ্ক যেমন থাকে শশাঙ্কের বুকে
কর্মহীন গর্বহীন দীপ্তিহীন সুখে ।
সুখে ছিনু , পাণ্ডবের গাণ্ডীবটঙ্কারে
শঙ্কাকুল শত্রুদল আসিত না দ্বারে ।
সুখে ছিনু , পাণ্ডবেরা জয়দৃপ্ত করে
ধরিত্রী দোহন করি’ ভ্রাতৃপ্রীতিভরে
দিত অংশ তার — নিত্য নব ভোগসুখে
আছিনু নিশ্চিন্তচিত্তে অনন্ত কৌতুকে ।
সুখে ছিনু , পাণ্ডবের জয়ধ্বনি যবে
হানিত কৌরবকর্ণ প্রতিধ্বনিরবে ।
পাণ্ডবের যশোবিম্ব-প্রতিবিম্ব আসি
উজ্জ্বল অঙ্গুলি দিয়া দিত পরকাশি
মলিন কৌরবকক্ষ । সুখে ছিনু , পিতঃ ,
আপনার সর্বতেজ করি নির্বাপিত
পাণ্ডবগৌরবতলে স্নিগ্ধশান্তরূপে ,
হেমন্তের ভেক যথা জড়ত্বের কূপে ।
আজি পাণ্ডুপুত্রগণে পরাভব বহি
বনে যায় চলি — আজ আমি সুখী নহি ,
আজ আমি জয়ী ।

This is a poem that was dedicated by Rabindranath Tagore to Radhakishore Devmanikya, the King of the Principality of Tripura, in 1900.

The poem takes the form of a conversation between Dhritarashtra, the blind patriarch of the Kurus, Duryodhana his eldest son and Gandhari, his queen and Duryodhana’s mother. After defeating the Pandavas in a false game of dice, Duryodhana is telling his father about his victory. Dhritarashtra rebukes him, saying the game was wrong. Duryodhana gives a powerful reply to his father, saying that for him, victory over arch enemies, the Pandavas is preferable to happiness and honour.

Gandhari’s Supplication

Dhritarashtra: Dh

Duryodhana: D

D:   I pay you my respects, Oh Father!

Dh:              Oh Wicked One,

Have you achieved your aim?

D:   I have achieved supremacy.

Dh:                  Are you now happy?

D:   I am victorious.

Dh:   Where is the happiness in winning this undivided kingdom?

D:                      I did not ask for happiness!

Victory, victory was my objective and I have achieved that!

Inconsequential moments of happiness do not satisfy the warrior’s hunger,

O  Leader of the Kurus – the fierce taste of victory

Churned from the oceans of my jealous mind!

This I have drunk!

Happy? No, Father, today I have gained ascendancy.

Father, I was happy, when we remained confined with the Pandavas,

As though a blemish upon the fair face of the moon

In idle, impotent placidity.

I was happy, when the thunder of the Pandava bows

kept anxious enemies from my door

I was happy, when the Pandavas brought the wealth of their conquered domains to us

sharing them in brotherly affection,

The days passed in entertainment and humor.

I was happy, the praise of the Pandavas daily echoing in my ears,

The reflected brilliance of the Pandava exploits making more apparent

What we Kauravas lacked.

I was happy, all pride extinguished, to live in the shadow of Pandava glory

as a toad lying undisturbed in the gloom of a well.

Today, when the vanquished Pandavas leave for their forest exile,

I am not happy, today I am SUPREME.