জন্মদিন / Jonmodin/ The Birthday

জন্মদিন

রবিপ্রদক্ষিণপথে জন্মদিবসের আবর্তন

           হয়ে আসে সমাপন।

                 আমার রুদ্রের

                 মালা রুদ্রাক্ষের

           অন্তিম গ্রন্থিতে এসে ঠেকে

           রৌদ্রদগ্ধ দিনগুলি গেঁথে একে একে।

     হে তপস্বী, প্রসারিত করো তব পাণি

                  লহো মালাখানি।

উগ্র তব তপের আসন,

           সেথায় তোমারে সম্ভাষণ

           করেছিনু দিনে দিনে কঠিন স্তবনে,

কখনো মধ্যাহ্নরৌদ্রে কখনো-বা ঝঞ্ঝার পবনে।

          এবার তপস্যা হতে নেমে এসো তুমি–

            দেখা দাও যেথা তব বনভূমি

ছায়াঘন, যেথা তব আকাশ অরুণ

          আষাঢ়ের আভাসে করুণ।

অপরাহ্ন যেথা তার ক্লান্ত অবকাশে

     মেলে শূন্য আকাশে আকাশে

বিচিত্র বর্ণের মায়া; যেথা সন্ধ্যাতারা

                  বাক্যহারা

              বাণীবহ্নি জ্বালি

নিভৃতে সাজায় ব’সে অনন্তের আরতির ডালি।

            শ্যামল দাক্ষিণ্যে ভরা

              সহজ আতিথ্যে বসুন্ধরা

                 যেথা স্নিগ্ধ শান্তিময়,

   যেথা তার অফুরান মাধুর্যসঞ্চয়

                 প্রাণে প্রাণে

বিচিত্র বিলাস আনে রূপে রসে গানে।

বিশ্বের প্রাঙ্গণে আজি ছুটি হোক মোর,

                  ছিন্ন করে দাও কর্মডোর।

                  আমি আজ ফিরব কুড়ায়ে

উচ্ছৃঙ্খল সমীরণ যে কুসুম এনেছে উড়ায়ে

            সহজে ধুলায়,

           পাখির কুলায়

      দিনে দিনে ভরি উঠে যে-সহজ গানে,

আলোকের ছোঁওয়া লেগে সবুজের তম্বুরার তানে।

               এই বিশ্বসত্তার পরশ,

স্থলে জলে তলে তলে এই গূঢ় প্রাণের হরষ

            তুলি লব অন্তরে অন্তরে–

সর্বদেহে, রক্তস্রোতে, চোখের দৃষ্টিতে, কণ্ঠস্বরে,

            জাগরণে, ধেয়ানে, তন্দ্রায়,

   বিরামসমুদ্রতটে জীবনের পরমসন্ধ্যায়।

         এ জন্মের গোধূলির ধূসর প্রহরে

                  বিশ্বরসসরোবরে

         শেষবার ভরিব হৃদয় মন দেহ

   দূর করি সব কর্ম, সব তর্ক, সকল সন্দেহ,

           সব খ্যাতি, সকল দুরাশা,

বলে যাব, “আমি যাই, রেখে যাই, মোর ভালোবাসা।’

  শান্তিনিকেতন, ২৩ বৈশাখ, ১৩৩৮

Image

 Tagore and his grand daughter Nandita

 ***

Birthday

On the cosmic path of the sun, the cycle of birthdays

Draws to an end.

The suns that daily visited my life

Strung as beads on a thread

Have reached the final stretch

Of sun-burnt days.

Great sage, extend your hand

Accept the offering.

On your fierce seat of meditation,

Where I have addressed you

Daily in complicated prayer

Sometimes by glaring midday sun, sometimes in the midst of storms.

Now, you may descend from your meditations –

Appear where your forests grow

Gentle with shade, where your skies glow

Compassionate with a hint of rain.

Where the evening stops to rest

Spreading its spell across the sky

In a myriad colours; where the evening star

In wordless silence

Prepares to shine a votive flame

In honour of the infinite.

Where plentiful green

Blesses the earth

Making it serene and peaceful,

So that it can bestow its endless sweetness

In each life

Through an infinite variety in beauty, song and feeling.

Grant me leave from the world today,

Remove me from the weight of duties.

Let me return today picking up along the way

Flowers blown by the restless breeze

In casual neglect upon the dust,

In the bird’s nest

That song that rises each day,

As light plucks gently at the strings of life.

The touch of this earthly soul,

The happiness that hides in the life hidden away in land and on water

That I wish to absorb into me –

Into my body, into the blood that courses through me, in my sight, my voice,

In wakefulness, thought and sleep,

On the shores of this restful sea, in the final hours of life.

In the dusk of this life

Let me fill from the well of beauty

And refresh for one last time my heart, body and soul

Let me cast away all striving, all argument, all suspicion,

All fame, all blind ambition,

And say, ‘As I go, I leave behind, my love for all.’

Santiniketan, 23rd Baisakh, 1338