পণরক্ষা/ Pawn Rokkha/ The Oath He Swore

পণরক্ষা

 
“মারাঠা দস্যু আসিছে রে ওই,
করো করো সবে সাজ’
আজমীর গড়ে কহিলা হাঁকিয়া
দুর্গেশ দুমরাজ।
বেলা দু’পহরে যে যাহার ঘরে
সেঁকিছে জোয়ারি রুটি,
দুর্গতোরণে নাকাড়া বাজিছে
বাহিরে আসিল ছুটি।
প্রাকারে চড়িয়া দেখিল চাহিয়া
দক্ষিণে বহু দূরে
আকাশ জুড়িয়া উড়িয়াছে ধুলা
মারাঠি অশ্বখুরে।
“মারাঠার যত পতঙ্গপাল
কৃপাণ-অনলে আজ
ঝাঁপ দিয়া পড়ি ফিরে নাকো যেন’
গর্জিলা দুমরাজ।
মাড়োয়ার হতে দূত আসি বলে,
“বৃথা এ সৈন্যসাজ,
হেরো এ প্রভুর আদেশপত্র
দুর্গেশ দুমরাজ!
সিন্দে আসিছে, সঙ্গে তাঁহার
ফিরিঙ্গি সেনাপতি–
সাদরে তাঁদের ছাড়িবে দুর্গ
আজ্ঞা তোমার প্রতি।
বিজয়লক্ষ্মী হয়েছে বিমুখ
বিজয়সিংহ-‘পরে–
বিনা সংগ্রামে আজমীর গড়
দিবে মারাঠার করে।’
“প্রভুর আদেশে বীরের ধর্মে
বিরোধ বাধিল আজ’
নিশ্বাস ফেলি কহিলা কাতরে
দুর্গেশ দুমরাজ।
মাড়োয়ার-দূত করিল ঘোষণা,
“ছাড়ো ছাড়ো রণসাজ।’
রহিল পাষাণ-মুরতি-সমান
দুর্গেশ দুমরাজ।
বেলা যায় যায়, ধূ ধূ করে মাঠ,
দূরে দূরে চরে ধেনু–
তরুতলছায়ে সকরুণ রবে
বাজে রাখালের বেণু।
“আজমীর গড় দিলা যবে মোরে
পণ করিলাম মনে,
প্রভুর দুর্গ শত্রুর করে
ছাড়িব না এ জীবনে।
প্রভুর আদেশে সে সত্য হায়
ভাঙিতে হবে কি আজ!’
এতেক ভাবিয়া ফেলে নিশ্বাস
দুর্গেশ দুমরাজ।
রাজপুত সেনা সরোষে শরমে
ছাড়িল সমর-সাজ।
নীরবে দাঁড়ায়ে রহিল তোরণে
দুর্গেশ দুমরাজ।
গেরুয়া-বসনা সন্ধ্যা নামিল
পশ্চিম মাঠ-পারে;
মারাঠি সৈন্য ধুলা উড়াইয়া
থামিল দুর্গদ্বারে।
“দুয়ারের কাছে কে ওই শয়ান,
ওঠো ওঠো, খোলো দ্বার।’
নাহি শোনে কেহ–প্রাণহীন দেহ
সাড়া নাহি দিল আর।
প্রভুর কর্মে বীরের ধর্মে
বিরোধ মিটাতে আজ
দুর্গদুয়ারে ত্যজিয়াছে প্রাণ
দুর্গেশ দুমরাজ।
***
 
 
THE OATH THAT HE SWORE
 
“The Maratha hordes are about to descend,
We must prepare for war”
In Ajmer fort surrounded by sand
Lord Dumraj declares with a roar.
In the midday hour in every house
People were preparing the lunchtime repast
When drums rang loud from the ramparts to rouse
Summoning all to come running in haste.
They scaled the walls and shaded their eyes
Far off on the southern roads
Plumes of dust to the sky did rise
From the hooves of the Marattha horde.
“Let all the Marattha locusts speedily burn
In the flames of our raised blade
So that they may never return ”
The enraged Lord Dumraj said.
 
 
A messenger arrived from Marwar
Saying, “This army is ordered not to budge,
I hold here a missive from your master
He has words for you, Lord Dumraj.
The Scindia comes, you must abide
His foreign devil of a general by his side –
Yield the fort to them with grace
This order of his you must follow.
The muse of victory Vijay Lakshmi has turned away
From Vijay Singh the brave
No war can you wage in order to save
Beloved Ajmer from the Marattha maw.
“My creed of honour is at odds today
With the order my master has decreed “
With a sigh and a heavy heart did say
Lord of the fort Dumraj.
 
 
The messenger from Marwar announced,
“Cast aside this chainmail suit.”
But like a statue from stone carved
Immoveable stood my Lord Dumraj.
The day is nearly done, fields shimmer in setting sun,
Cattle graze near and far –
Under the shade of trees a wistful tune
As a shepherd plays his flute.
“When you gave Ajmer fort into my care
I had vowed to myself,
That to breach these walls no enemy would dare
As long as there was life within me.
Will my master’s order be enough
For me to forget my pride!”
Deep was the sigh that escaped the lips
Of my disappointed Lord Dumraj.
 
 
The Rajput army were full of anger and shame
As they stripped off their breastplates and arms
But silent there stood upon the gate
My defiant Lord Dumraj.
Saffron robed, evening descends
Upon the western fields;
The Marattha army swathed in clouds of dust
Comes to a halt at the fortress doors.
“Who lies there asleep by the wall,
Wake up, wake and let us enter the fort.”
But there was no one left to heed the call
Within his heart life no longer held court.
When a master’s words are at odds with one’s honourable heart
You must fight to preserve what you know to be true
At the gates of the fort lies dead the upstart
My honourable lord Dumraj.