Tag Archive | ক্ষণিকা

সমাপ্তি -ক্ষণিকা/Samapti – Khonika/ The Ending – the final poem from the collection known as Khonika

সমাপ্তি

 

পথে যতদিন ছিনু ততদিন অনেকের সনে দেখা।

সব শেষ হল যেখানে সেথায় তুমি আর আমি একা।

নানা বসন্তে নানা বরষায়

অনেক দিবসে অনেক নিশায়

দেখেছি অনেক, সহেছি অনেক, লিখেছি অনেক লেখা–

পথে যতদিন ছিনু ততদিন অনেকের সনে দেখা।

 

কখন যে পথ আপনি ফুরালো, সন্ধ্যা হল যে কবে!

পিছনে চাহিয়া দেখিনু কখন চলিয়া গিয়াছে সবে।

তোমার নীরব নিভৃত ভবনে

জানি না কখন পশিনু কেমনে।

অবাক রহিনু আপন প্রাণের নূতন গানের রবে।

কখন যে পথ আপনি ফুরালো, সন্ধ্যা হল যে কবে!

 

চিহ্ন কি আছে শ্রান্ত নয়নে অশ্রুজলের রেখা?

বিপুল পথের বিবিধ কাহিনী আছে কি ললাটে লেখা?

রুধিয়া দিয়েছ তব বাতায়ন,

বিছানো রয়েছে শীতল শয়ন,

তোমার সন্ধ্যাপ্রদীপ-আলোকে তুমি আর আমি একা।

নয়নে আমার অশ্রুজলের চিহ্ন কি যায় দেখা!

***

The Ending

 

Upon the road while I walked many were the faces I saw

But where the road ended we were alone, only you and I.

            Over many a spring and many a rain

            And through many a day and night

I have seen so much and borne so much and written many a line –

Upon the road while I walked many were the faces I saw.

 

I do not recall when the road ended of its own accord, or when day’s close fell!

As I looked behind, I found the others had walked ahead.

            Into the silent solitude of your kingdom

            I know not when I had entered.

Silenced was I in wonder at the new song that rose in my heart.

When did the road end of its own accord, when did day’s close fall!

 

 Are there signs of tears beneath these worn eyes?

Are the tales of my journey engraved upon my brow?

            You have shut away the outside world

            You have made a haven for me to rest

 By the light of your evening lamp, you and me alone

Can you see the tears of joy that rise, to these worn eyes!